Wednesday, March 13, 2019
Home > তথ্যপ্রযুক্তি > শহিদুল আলম অসৎ: জয়

শহিদুল আলম অসৎ: জয়

আলোকচিত্রী শহিদুল আলমকে অসৎ আখ্যা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয়। বলেছেন, আদালতে নির্যাতনের মিথ্যা অভিযোগ করে ক্যামেরার সামনে হাঁটার সমস্যার অভিনয় করছেন তিনি।

নিজের ভেরিফাইড ফেসবুক পেজে সংক্ষিপ্ত স্ট্যাটাসে এই কথা জানান প্রধানমন্ত্রীর তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা।

নিরাপদ সড়কের দাবিতে স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীদের আন্দোলন চলাকালে গত ৪ আগস্ট ফেসবুকে গুজব ছড়িয়ে ছাত্রদের উত্তেজিত করার চেষ্টা করা হয়। ফেসবুক লাইভে এসে বা সাক্ষাৎকারের মতো ভিডিও তৈরি করে প্রচারের চেষ্টা করা হয় যে ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে চারজন ছাত্রকে হত্যা ও চারটি মেয়েকে ধর্ষণ করা হয়েছে।

এরপর দল ক্ষমতাসীন দলের ধানমন্ডির কার্যালয়ে বেঁধে হামলা হয় আর তা প্রতিহত করতে গেলে বেঁধে যায় সংঘর্ষ।

দিনভর নানা ঘটনা নিয়ে কাতারভিত্তিক সংবাদ বাধ্যম আল জাজিরায় শহিদুল সাক্ষাৎকার দিয়ে বলেন, এই আন্দোলন কেবল নিরাপদ সড়কের জন্য নয়। তার দাবি, সরকারের ‘অপশাসনের’ বিরুদ্ধে ক্ষোভ থেকে মাঠে নামে ছাত্ররা। আর সরকার জানে ‘সুষ্ঠু’ নির্বাচনে তারা জিততে পারবে না। এ কারণে তারা ‘নিরপেক্ষ’ নির্বাচন দিতে চায় না।

পরদিন রাতে শহিদুলকে ধানমন্ডির বাসা থেকে তুলে আনে গোয়েন্দারা। আর সোমবার ৫৭ ধারার একটি মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে সাত দিনের রিমান্ডে আনা হয়।

বিচারিক আদালতে শহিদুল দাবি করেন, গোয়েন্দা কার্যালয়ে ঘুষি দিয়ে তার নাক ফাটিয়ে দেয়া তার নাক ফাটিয়ে দেয়া হয়েছে এবং এতে রক্তে তার পাঞ্জাবি ভিজে যায়। পরে সেটি পাল্টাতে হয়।

পরে এই রিমান্ডের আদেশের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে যান শহিদুলের স্ত্রী। সেখানেও এই আলোকচিত্রির আইনজীবীরা নির্যাতনের অভিযোগ আনেন।

আদালতের নির্দেশে বুধবার শহিদুলকে বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে নেয়া হয়। কিন্তু সেখানকার চিকিৎসকরা জানান, তার অবস্থা হাসপাতালে ভর্তির মতো নয়। পরে তাকে আবার গোয়েন্দা কার্যালয়ে পাঠানো হয়।

আদালতে গোয়েন্দা কর্মকর্তা শহিদুলকে নির্যাতনের কথা অস্বীকার করে বলেছেন, তিনি কল্পনাবিলাস থেকে এই অভিযোগ এনেছেন।

জয় তার স্ট্যাটাসে লেখেন, ‘শহিদুল আলমের নির্যাতনের অভিযোগ আমাদের সরকারের বিরুদ্ধে তার অনেক মিথ্যা ও বিভ্রান্তিকর তথ্যের মধ্যেই একটি। তাকে বঙ্গবন্ধু মেডিকেল হাসপাতালে নেয়া হয় যেখানে চিকিৎসকরা তার শারীরিক পরীক্ষা করেন। তারা নির্যাতনের কোনো প্রমাণ এমনকি ইঙ্গিতও পাননি। আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সাথে সরাসরি যোগাযোগ করে একই বিষয় জানতে পারেন।’

প্রধানমন্ত্রী পুত্র লেখেন, ‘এ থেকে প্রমাণ হয় শহিদুল আলম আসলে কতটা অসৎ। আদালতে নির্যাতনের মিথ্যা অভিযোগ করে ক্যামেরার সামনে হাঁটার সমস্যার অভিনয় করছে।’

%d bloggers like this: