Monday, December 10, 2018
Home > নির্বাচন > নির্বাচনে সব দলের অংশগ্রহণ চান গণমাধ্যমের প্রতিনিধিরা

নির্বাচনে সব দলের অংশগ্রহণ চান গণমাধ্যমের প্রতিনিধিরা

নির্বাচন কমিশনকে মেরুদণ্ড সোজা রেখে নির্বাচন পরিচালনার আহ্বান জানিয়েছেন বাংলাদেশে প্রতিদিনের সম্পাদক নঈম নিজাম। বলেছেন, আইনে ইসিকে যে ক্ষমতা দেয়া হয়েছে তা যথেষ্ট, এখন তাদেরকে তা প্রয়োগ করতে হবে।

বুধবার নির্বাচন কমিশনের ধারাবাহিক সংলাপে অংশ নিয়ে তিনি এসব কথা বলেন বলে জানান অপেক্ষমাণ সাংবাদিকদের।

বুধবার সকাল ১০টায় নির্বাচন কমিশনের সভাকক্ষে সংলাপ শুরু হয়। প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদার সভাপতিত্বে সংলাপে চার নির্বাচন কমিশনার, ইসি সচিব ও সংস্থাটির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত আছেন।

দুই দিনব্যাপী সংলাপের প্রথম দিন বিভিন্ন পত্রিকার সম্পাদক, জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক ও সাংবাদিক নেতা মিলিয়ে মোট ৩৭ জনকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে গত ৩১ জুলাই থেকে সংলাপ শুরু করে ইসি। সেদিন সংলাপে অংশ নিয়ে সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা নির্বাচনে নিয়মিত আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সংজ্ঞায় অন্তর্ভুক্ত করা, নির্বাচনের আগে সংসদ ভেঙে দেয়া, ‘না’ ভোট প্রবর্তন করাসহ বিভিন্ন প্রস্তাব তুলে ধরেছিলেন। ধারাবাহিকতার অংশ হিসেবে আজ গণমাধ্যমের সঙ্গে সংলাপ করছে ইসি।

নির্বাচনে সেনা মোতায়েন বিষয়ে নঈম নিজাম বলেন, ‘সেনা মোতায়েন করা না করার বিষয় নির্বাচন কমিশনের এখতিয়ার। প্রয়োজন মনে করলে তারা সেনা মোতায়েন করতে পারেন।’

জ্যেষ্ঠ এই সম্পাদক জানান, আগামী নির্বাচন যেন সব দলের অংশগ্রহণে হয় এবং এ ব্যাপারে যেন নির্বাচন কমিশন উদ্যোগী ভূমিকা পালন করে সেই আহ্বান তিনি জানিয়েছেন।

জাতীয় প্রেস ক্লাবের সভাপতি শফিকুর রহমান সাংবাদিকদের জানান, নির্বাচনের পর সংখ্যালঘুদের ওপর নির্যাতন বেড়ে যায়, তা বন্ধে নির্বাচন কমিশনকে তিনি আহ্বান জানিয়েছেন।

শফিকুর রহমান বলেন, ‘আমি নির্বাচন কমিশনকে বলেছি তারা যেন পর্যবেক্ষকদের ওপর সতর্ক দৃষ্টি রাখেন। কারণ অনেক পর্যবেক্ষক সাম্রাজ্যবাদীদের এজেন্ডা বাস্তবায়ন করে থাকে।’

জাতীয় প্রেস ক্লাবের নির্বাচনে সেনা মোতায়েনের পক্ষে নন। তিনি জানান, সরকারি গুরুত্বপূর্ণ কোনো বিষয় ছাড়া সেনা মোতায়েন করা উচিত হবে না।

%d bloggers like this: