Wednesday, December 12, 2018
Home > রাজনীতি > বর্তমান সরকার ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠায় বদ্ধপরিকর : জয়

বর্তমান সরকার ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠায় বদ্ধপরিকর : জয়

পুরান ঢাকার আলোচিত বিশ্বজিৎ হত্যা মামলার রায়ের পর প্রধানমন্ত্রীর ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয় বলেছেন, অপরাধী যে দলেরই হোক না কেন বর্তমান সরকার ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠায় বরাবর বদ্ধপরিকর। বর্তমান সরকারের আমলেই ক্ষমতাসীন দলের ছাত্র সংগঠনের নেতাকর্মীদের সবচেয়ে বেশি কারাগারে পাঠানো হয়েছে বলেও দাবি করেন জয়।

আলোচিত এই মামলায় হাইকোর্টের রায়ের পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে দেয়া এক প্রতিক্রিয়ায় এ কথা বলেছেন জয়। এই মামলায় বিচারিক আদালত মোট ২১ জনের সাজা ঘোষণা করেছিল। এর মধ্যে আট জনকে দেয়া হয় ফাঁসি আর ১৩ জনকে দেয়া হয় যাবজ্জীবন কারাদণ্ড।

এই রায়ের বিরুদ্ধে ফাঁসি হওয়া আটজন এবং যাবজ্জীবন সাজা পাওয়াদের মধ্যে দুই জন আপিল করেন। আর হাইকোর্ট বিচারিক আদালতে ফাঁসির দণ্ড পাওয়া দুইজনকে খালাস এবং চারজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে। আর যাবজ্জীবন কারাদণ্ড পাওয়া দুইজন আপিল করে খালাস পেয়েছেন।

২০১২ সালের ৯ ডিসেম্বর বিএনপি-জামায়াত জোটের অবরোধের সময় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা অবরোধবিরোধী মিছিল বের করে। এ সময় পুরান ঢাকায় প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যা করা হয় বিশ্বজিৎ দাসকে।

এই ঘটনার পর সে সময় তীব্র সমালোচনায় পড়ে ক্ষমতাসীন দল। আর সরকার সমর্থকরা খুন করেছে বলে এর বিচার হবে কি না, এ নিয়ে সংশয়ের কথা বলেছিলেন বিএনপিপন্থি বুদ্ধিজীবীরা।

তবে এক বছরের মধ্যেই বিচারিক আদালতের রায় প্রকাশ হয়। আর এই রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করে আসামিরা। প্রায় চার বছর পর রবিবার এলো হাইকোর্টের রায়। এই রায়ের পর ফেসবুকে প্রতিক্রিয়া জানান প্রধানমন্ত্রী পুত্র জয়।

জয় লিখেন, ‘অপরাধী সে যে দলেরই হোক না কেন, ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠায় আমাদের আওয়ামী লীগ সরকার বরাবরই বদ্ধপরিকর।’

‘পূর্বের যে কোন সরকারের তুলনায় বর্তমান সরকারের আমলেই সবচেয়ে বেশি ক্ষমতাসীন দলের ছাত্রসংগঠনের নেতাকর্মীদের জেলে পাঠানো হয়েছে। এমনকি সাংসদ ও মন্ত্রীদের আত্মীয়-স্বজনদের অপরাধকেও আমরা বিন্দুমাত্র ছাড় দেইনি। আমরা আইনকে তার নিজস্ব গতিতে চলতে দেয়ায় বিশ্বাসী।’

%d bloggers like this: