Monday, December 10, 2018
Home > আন্তর্জাতিক > সেই বিতর্কিত অধিকারের সম্পাদক মালয়েশিয়ায় আটক

সেই বিতর্কিত অধিকারের সম্পাদক মালয়েশিয়ায় আটক

বাংলাদেশের বিতর্কিত মানবাধিকার বিষয়ক সংগঠন অধিকারের সম্পাদক আদিলুর রহমান খানকে মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুর বিমানবন্দর থেকে আটক করেছে দেশটির ইমিগ্রেশন কর্মকর্তারা। বৃহস্পতিবার ভোরের দিকে কুয়ালালামপুর বিমানবন্দর থেকে তাকে আটক করা হয়েছে।

আদিলুর রহমান খানকে বর্তমানে ইমিগ্রেশনের লক আপে নেয়া হয়েছে। খানকে ছেড়ে দিতে কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে মালয়েশিয়ার স্থানীয় এই সংগঠন

ফ্রিমালয়েশিয়া ট্যুডের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, অধিকারের সম্পাদক আদিলুর রহমানকে বিমানবন্দর ইমিগ্রেশন কর্মকর্তারা ভোর ৪টার দিকে আটক করেছে।

মৃত্যুদণ্ড বিলোপ নিয়ে একটি সেমিনারে অংশ নেয়ার উদ্দেশ্যে মালয়েশিয়ায় গিয়েছিলেন তিনি। মালয়েশিয়ার যান ।

উল্লেক্ষ তিনি বিভিন্ন সময় বিতর্কিত প্রতিবেদন ছেপে আলোচনায় আসেন তায় হল :

১. তথ্য প্রমাণ ছাড়া শাপলা চত্বরের ঘটনায় একটি রাজনৈতিক দল ২৫০০ মৃত বললে বলতে পারে কারণ এদেশে রাজনৈতিক মন্তব্যের জবাবদিহিতা নেই। কিন্তু কোন সংবাদকর্মী বা মিডিয়া, আন্তর্জাতিক পর্যবেক্ষকরা, এমন কি হেফাজত’ও যেখানে ১১ জনের বেশি মৃতের সন্ধান পায়নি সেখানে অধিকার ৬১ জন কনফার্ম মৃত বলে ওয়েবসাইটে প্রকাশ করে। পরবর্তীতে সে রিপোর্ট পোর্টাল থেকে সরালেও প্রচার অব্যাহত থাকে।
২. সীমান্তে হত্যাকাণ্ড নিয়ে বিভ্রান্তিকর তথ্য।
৩. মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে চরম মিথ্যাচার।

 

সুয়ারামের নির্বাহী পরিচালক সেভান ডোরেইসামি এক বিবৃতিতে বলেন, কেন আদিলুর রহমানকে আটক করা হয়েছে সকাল ১০টা পর্যন্ত ইমিগ্রেশন কর্মকর্তারা কোনো কারণ জানাতে পারেননি।

তবে সুয়ারাম তথ্য পেয়েছে যে, আদিলুর রহমান খানকে বর্তমানে ইমিগ্রেশনের লক আপে নেয়া হয়েছে। খানকে ছেড়ে দিতে কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে মালয়েশিয়ার স্থানীয় এই মানবাধিকার সংগঠন। একই সঙ্গে মালয়েশিয়া সফররত এই মানবাধিকার কর্মীকে হয়রানি না করারও আহ্বান জানানো হয়েছে।

বিদেশি কোনো মানবাধিকার কর্মীর বিরুদ্ধে মালয়েশিয়া সরকারের সর্বশেষ পদক্ষেপ এটি। চলতি মাসের শুরুর দিকে যুক্তরাজ্যভিত্তিক মানবাধিকার সংগঠন অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল গত মাসে সিঙ্গাপুরের মানবাধিকার কর্মী হ্যান হুই হুইকে মালয়েশিয়ায় প্রবেশে বাধা দেয়ায় উদ্বেগ প্রকাশ করে।

মালয়েশিয়ার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয় সিঙ্গাপুরের এই মানবাধিকার কর্মীকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করায় তাকে সেদেশে প্রবেশে বাধা দেয়া হয়। তবে কোনো মানবাধিকার কর্মীকে এই প্রথম যে মালয়েশিয়া সরকার সেদেশে প্রবেশে বাধা দিয়েছে; তেমন নয়।

সম্প্রতি হংকংয়ের রাজনৈতিক কর্মী জোশুয়া অং এবং ইন্দোনেশিয়ার মানবাধিকার কর্মী মুগিয়ানতো সিপিনকেও মালয়েশিয়ায় প্রবেশে বাধা দেয় দেশটির সরকার।

%d bloggers like this: