ফ্রি ফায়ার ও পাবজির খেলা যাচ্ছে আইএসপি ও আইআইজি মাধ্যমে

ফ্রি ফায়ার ও পাবজির মতো অনলাইন গেমস বন্ধ (ব্লক) করার প্রক্রিয়া সম্পন্ন করেছে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের ডিপার্টমেন্ট অব টেলিকম (ডট)। তবে গেমগুলো পুরোপুরি ব্লক করতে কিছুটা সময় লাগবে বলে জানিয়েছেন ডটের ভারপ্রাপ্ত মহাপরিচালক মো. কামরুজ্জামান। টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি’র নির্দেশ পেয়েই কাজ শুরু করে ডট।

মো. কামরুজ্জামান বলেন, ‘এগুলো বন্ধ করলেও কিছু সমস্যা (বাইপাস) রয়ে যায়। এজন্য ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান (আইএসপি), ইন্টারন্যাশনাল ইন্টারনেট গেটওয়ের (আইআইজি) সহযোগিতায় তা পুরোপুরি বন্ধ করা সম্ভব হবে।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার  বলেন, ‘আদালতের নির্দেশনা পেয়ে বিটিআরসিকে নির্দেশ দিই। আদালত যে দুটোর (পাবজি ও ফ্রি ফায়ার ) বিষয়ে পরিষ্কার নির্দেশনা দিয়েছেন, সে দুটো বন্ধ করা হয়েছে। অন্য যেগুলোকে ক্ষতিকর বলা হয়েছে, সেগুলোর সঙ্গে বিভিন্ন পক্ষ জড়িত রয়েছে। ফলে তা পরবর্তীতে আলোচনা করে ঠিক করা হবে।’

বুধবার (২৫ আগস্ট) সন্ধ্যায় (৬টায়)পাবজি  ও ফ্রি ফায়ার খেলে এমন দু’জনের সঙ্গে কথা জানা গেলো— তারা তখনও গেম খেলতে পারছে। গেমের অবস্থা আগের মতোই।

ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলোর সংগঠন আইএসপিএবি’র সভাপতি আমিনুল হাকিম বলেন, ‘সব আইএসপির নেটওয়ার্কে এখনও পাবজি, ফ্রিফায়ার খেলা যাচ্ছে। গেম দুটো বন্ধ হয়নি।’

দেশের আইআইজি ফোরামের মহাসচিব আহমেদ জুনায়েদ  বলেন, ‘প্রতিটি আইআইজির এন্ডে ডিপিআই (ডিপ প্যাকেট ইন্সপেকশন) বসানো আছে। ফলে আইআইজি, আইএসপির কিছুই করার নেই। ডটকেই গেমগুলো পুরোপুরি ব্লক করতে হবে।’

ইন্টারনেট ভিত্তিক এসব গেম ও অনলাইন ভিডিও স্ট্রিমিং অ্যাপের কারণে তরুণ প্রজন্মের ‘বিরূপ প্রভাব’ পড়ছে। এমন বক্তব্য তুলে ধরে গত ১৯ জুন সরকারের সংশ্লিষ্টদের কাছে উকিল নোটিশ পাঠান সুপ্রিম কোর্টের দুই আইনজীবী।

কিন্তু উকিল নোটিশে সাড়া না পেয়ে গত ২৪ জুন উচ্চ আদালতে রিট করেন এই আইনজীবীরা। এর পরিপ্রেক্ষিতে গত ১৬ অগাস্ট দেশের অনলাইন প্ল্যাটফর্ম থেকে পাবজি, ফ্রি ফায়ারসহ ‘বিপজ্জনক’ সব গেম ও টিকটক-লাইকির মতো ভিডিও শেয়ারিং অ্যাপ তিন মাসের জন্য বন্ধের নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। সেই সঙ্গে এসব অনলাইন গেম ও টিকটক, লাইকির মতো ভিডিও স্ট্রিমিং অ্যাপ কেন বন্ধের নির্দেশ কেন দেয়া হবে না, তা জানতে রুল জারি করা হয়।

এরই পরিপ্রেক্ষিতে পাবজি, ফ্রি ফায়ারের মতো ইন্টারনেট গেইমের লিংক বন্ধে কাজ শুরু করেছে বিটিআরসি। এ দুটি অনলাইন গেম ছাড়াও টিকটক, বিগো লাইভ ও লাইকির মতো অ্যাপগুলো সমাজে বিরূপ প্রতিক্রিয়া তৈরি করছে বলেও উদ্বেগের কথা জানিয়েছেন অনেকে। তাই ক্ষতিকর সকল গেমিং অ্যাপ বন্ধের প্রক্রিয়া শুরু করেছে নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি।

বিটিআরসি সূত্রে জানা গেছে, আগে কোনো অ্যাপ বা ওয়েবসাইট বন্ধ করতে হলে ইন্টারনেট গেটওয়ে, ব্রডব্যান্ড ও মোবাইল অপারেটরদের নির্দেশনা দিতে হতো। এখন ডিপার্টমেন্ট অব টেলিকম নিজেই এ কাজ করতে পারে।

সব অপারেটরকে বিটিআরসির চিঠি

বুধবার (২৫ আগস্ট)  রাতে আদালতের নির্দেশনা অনুসারে বিটিআরসি থেকে দেশের সব মোবাইলফোন অপারেটর, সব আইআইজি অপারেটর, সব আইএসপি অপারেটর, সব নিক্স অপারেটরের কাছে চিঠি পাঠানো হয়েছে। কমিশনের ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড অপারেশন্স বিভাগের পরিচালক গোলাম রাজ্জাকের সই করা  চিঠিতে বলা হয়, পাবজি, ফ্রি ফায়ার এবং এ সম্পর্কিত সব ধরনের অনলাইন গেমস নির্দেশনার তারিখ থেকে তিন মাসের জন্য  ব্যান/ব্লক/ রিমুভ করার নির্দেশনা দেওয়া হলো।