জয় ডিজিটাল আর্কিটেক্ট অব বাংলাদেশ : পলক

“তিনি (সজীব ওয়াজেদ জয়) স্বপ্রতিভায় নক্ষত্রের মতো উজ্বলতা ছড়িয়েছেন। তিনি ডিজিটাল আর্কিটেক্ট অব বাংলাদেশ” বলেন আইসিটি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

বর্তমানে মধ্যবয়সী সজীব ওয়াজেদ জয়ের বয়স ২০৪১ সালে হবে ৭০ বছর। তার সেই পরিণত বয়সে বাংলাদেশ হবে উন্নত, জ্ঞানভিত্তিক ও উদ্ভাবনী দেশ। জন্মদিনে এমন প্রত্যাশা ব্যক্ত করে সজীব ওয়াজেদ জয়কে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন আইসিটি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) আইসিটি বিভাগ প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের ৫০তম জন্মবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে ভার্চুয়াল প্ল্যাটফর্মে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে জুনাইদ আহমেদ পলক এ কথা বলেন।

পলক বলেন, ‘জয় নামটি বঙ্গবন্ধুর রাখা। নামটি তার জন্মের আগেই ঠিক করে রাখা হয়েছিল। বাংলাদেশের বয়স ৫০ বছর, তার বয়সও ৫০। আজ তার ৫০তম জন্মবার্ষিকী, ৫১তম জন্মদিন। জন্মদিনে তাকে শুভেচ্ছ জানাই।’

জয়ের উদ্যোক্তা জীবন নিয়ে পলক বলেন, ‘১৯৯৯ সালে সিলিকন ভ্যালিতে যখন ইন্টারনেটনির্ভর স্টার্টআপ তৈরি হচ্ছিল, সেখানে সজীব ওয়াজেদ জয়ের উদ্যোক্তা জীবনের শুরু।’ বিভিন্ন সময়ে দেশের নির্বাচনি ইশতেহার তৈরি, আইসিটি নীতিমালা তৈরি, হাইটেক পার্ক স্থাপন, ডিজিটাল সেন্টার প্রতিষ্ঠা, জাতীয় বাতায়নের ধারণা, আমাদানিকারক দেশ থেকে উৎপাদক দেশ হিসেবে আত্মপ্রকাশের পরিল্পনা বাস্তবায়ন ইত্যাদিতে সজীব ওয়াজেদ জয়ের ভূমিকার কথা তুলে ধরেন পলক।

সভাপতির বক্তব্যে আইসিটি বিভাগের সিনিয়র সচিব এনএম জিয়াউল আলম সজীব ওয়াজেদ জয়কে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানান।  তিনি সজীব ওয়াজেদ জয়ের বিভিন্ন কাজ, আইসিটি খাতে তার অবদান, পরিকল্পনা ইত্যাদি তুলে ধরেন।

আইসিটি বিভাগের অতিরিক্ত সচিব রীনা পারভীনের স্বাগত বক্তব্যের পরে অনুষ্ঠানে সজীব ওয়াজেদ জয়ের কর্ম ও উদ্যোগ নিয়ে তৈরি একটি প্রেজেন্টেশন দেখান এলআইসিটি প্রকল্পের লিড সামি আহমেদ।

অনুষ্ঠানে এটুআই’র প্রকল্প পরিচালক ড. আবদুল মান্নান, বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা. বিকর্ণ কুমার ঘোষ, বেসিস সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবির, আইএসপিএবির সভাপতি আমিনুল হাকিম, বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতির সভাপতি মো. শাহিদ উল মুনীর, বাক্বোর সভাপতি ওয়াহিদ শরীফ, ই-ক্যাবের সাধারণ সম্পাদক মো. আব্দুল ওয়াহেদ তমাল প্রমুখ সংযুক্ত থেকে বক্তব্য রাখেন।

সব শেষে সজীব ওয়াজেদ জয়ের জন্মদিন উপলক্ষে তৈরি একটি অডিও-ভিজুয়াল উপস্থাপনা দেখানো হয়।