Monday, October 15, 2018
Home > শিক্ষা > অতিরিক্ত ফি রোধে কঠোর ব্যবস্থা

অতিরিক্ত ফি রোধে কঠোর ব্যবস্থা

শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত ফি ও বেতন আদায় বন্ধে ‘কঠোর’ ব্যবস্থা নেয়ার কথা চিন্তা-ভাবনা করছে সরকার। প্রয়োজনে সংশ্লিষ্ট শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের পাঠদান অনুমতি বাতিল করা হতে পারে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা  বলেন, কিছু স্কুল এর আগেও কয়েক দফায় শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত বেতন ও ফি আদায় করেছে। এসব বিষয়ে সংশ্লিষ্ট স্কুলকে সতর্ক ও অতিরিক্ত ফি ফেরত দেয়ার নির্দেশনা দিলেও তা বাস্তবায়ন করেনি স্কুল কর্তৃপক্ষ। বরং তারা অতিরিক্ত ফি আদায়ের কাজ বরাবরের মতো চালিয়ে যাচ্ছে। এসব বিবেচনায় নিয়ে কঠোর ব্যবস্থার কথা ভাবছে মন্ত্রণালয়।

জানতে চাইলে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের (মাউশি) মহাপরিচালক অধ্যাপক ফাহিমা খাতুন ঢাকাটাইমস টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “সরকারের নিয়মনীতি উপেক্ষা করে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে গলাকাটা ফি ও বেতন আদায় মেনে নেয়া হবে না। যারা অতিরিক্ত বেতন নিচ্ছে, তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।”

কী ধরনের কঠোর ব্যবস্থা্- এমন প্রশ্নের জবাবে অধ্যাপক ফাহিমা খাতুন বলেন, সরকারের সর্বোচ্চ ক্ষমতা আছে এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান নিয়মনীতি না মানলে তাদের এমপিও বন্ধ ও পাঠদান অনুমতি বাতিল করার। আর যেসব স্কুল সরকারের এমপিওভুক্ত নয়, তাদের পাঠদান অনুমতি বাতিল করতে পারে সরকার।

নিয়ম ভাঙা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে কবে নাগাদ ব্যবস্থা নেয়া হবে- জানতে চাইলে ফাহিমা খাতুন বলেন, শিগগির সবই জানতে পারবেন। তবে ব্যবস্থা নিতে বেশি সময় নেয়া হবে না।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, সরকার প্রাথমিকভাবে বেশি বেতন নেয়া স্কুলগুলোকে বেতন ফেরত দেয়ার নির্দেশ দেবে। এই নির্দেশনা না মানলে পাঠদান অনুমতি বাতিল করার মতো কঠোর ব্যবস্থার দিকে যাবে সরকার।

রাজধানীর বড় বড় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের বেতন হঠাৎ দ্বিগুণ করায় গত কয়েক দিন ধরে অভিভাবকরা প্রতিদিন রাজপথে প্রতিবাদ-বিক্ষোভ করছেন। সরকারি চাকুরেদের বেতন বৃদ্ধির পর এসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক ও কর্মচারীদের বেতন বাড়ানোর অজুহাতে  এই বিশৃঙ্খলা নেমে আসে। অভিভাবকরা বলছেন, বড় বড় এসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষকরা আগে থেকেই তুলনামূলকভাবে বেশি বেতন পেয়ে আসছিলেন।

মাউশি সূত্রে জানা গেছে, অস্বাভাবিক বেতন বৃদ্ধি করা স্কুলগুলোর তথ্য সংগ্রহ শুরু হয়েছে। এরই মধ্যে মতিঝিল আইডিয়াল, উইলস লিটল ফ্লাওয়ারসহ বেশ কয়েকটি স্কুলের তথ্য সংগ্রহ শেষ হয়েছে। ভিকারুননিসা নূন স্কুলের তথ্য সংগ্রহে মাঠে রয়েছেন কর্মকর্তারা। অতিরিক্ত বেতন বাড়ানোর অভিযোগের প্রমাণও পেয়েছে মাউশি।  বাকি স্কুলগুলোর তথ্য সংগ্রহ শেষ হলেই শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া শুরু হবে বলে জানায় সূত্র।
– See more at: http://www.dhakatimes24.com/2016/01/17/98897/%E0%A6%85%E0%A6%A4%E0%A6%BF%E0%A6%B0%E0%A6%BF%E0%A6%95%E0%A7%8D%E0%A6%A4-%E0%A6%AB%E0%A6%BF-%E0%A6%B0%E0%A7%8B%E0%A6%A7%E0%A7%87-%E0%A6%AA%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A7%9F%E0%A7%8B%E0%A6%9C%E0%A6%A8%E0%A7%87-%E0%A6%AA%E0%A6%BE%E0%A6%A0%E0%A6%A6%E0%A6%BE%E0%A6%A8-%E0%A6%AC%E0%A6%BE%E0%A6%A4%E0%A6%BF%E0%A6%B2#sthash.y8xI7jth.dpuf

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: