Monday, January 7, 2019
Home > অর্থনীতি > রাজধানীতে চাল-রসুন-মাছের দাম বাড়তি

রাজধানীতে চাল-রসুন-মাছের দাম বাড়তি

কৃষকের ঘরে নতুন ধান উঠলেও রাজধানীর বাজারে চালের দামে কমতির কোনো লক্ষণ নেই। উল্টো গত সপ্তাহের তুলনায় এ সপ্তাহে এক থেকে দুই টাকা বেশি দরে বিক্রি হচ্ছে এ পণ্য। সেই সঙ্গে সপ্তাহ ব্যবধানে বেড়েছে মাছ ও রসুনের দামও।

শুক্রবার (১৫ জানুয়ারি) রাজধানীর মালিবাগ ও রামপুরাসহ বিভিন্ন বাজারে এসব পণ্যের বাড়তি দাম দেখা গেছে।

রাজধানীর খুচরা বাজারে শুক্রবার মিনিকেট চাল ৪৬ টাকা, বিআর-আটাশ ৩৬ থেকে ৪০ টাকা, বিআর-ঊনত্রিশ ৩৫ থেকে ৩৮ টাকা, মোটা চাল (স্বর্ণা) ৩০ থেকে ৩২ টাকা, পাইজাম ৩৪ টাকা, কাটারিভোগ ৬৬ থেকে ৭০ টাকা, বাসমতি ৫৬ থেকে ৬২ টাকায় বিক্রি হতে দেখা গেছে।

এদিকে, কোনো কারণ ছাড়াই রসুনও বাড়তি দামে বিক্রি হচ্ছে। শুক্রবার রাজধানীর বাজারে রসুন (বিদেশি) ১৫০ টাকা দরে বিক্রি হতে দেখা গেছে, যা গত সপ্তাহে ১১০ টাকায় বিক্রি হয়েছে। আর দেশি রসুনের দাম ১০ টাকা বেড়ে ১২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

চালান কম থাকায় বিদেশি রসুনের দাম বেড়েছে বলে জানিয়েছেন রামপুরা বাজারের বিক্রেতা জিয়া উদ্দিন।

তবে পেঁয়াজ ও আলুর দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। দেশি পেঁয়াজ প্রতি কেজি ৩০ টাকা ও আলু ৩০ টাকা দরে বিক্রি হতে দেখা গেছে।

রাজধানীর মাছের বাজারেও বাড়তি দর দেখা গেছে। শুক্রবার রুই মাছ (মাঝারি) ২৫০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে, যা গত সপ্তাহে ২২০ টাকায় বিক্রি হয়েছে। এছাড়া কাতল (মাঝারি) ২৮০ টাকা, তেলাপিয়া ১৮০ থেকে ২১০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

গত সপ্তাহের তুলনায় প্রায় একশ টাকা বেশি দরে বিক্রি হচ্ছে চিংড়ি। শুক্রবার ছোট চিংড়ি ৪৫০ টাকা, মাঝারি চিংড়ি ৫৫০ টাকা ও বড় চিংড়ি ৬৫০ থেকে ৭০০ টাকায় বিক্রি হতে দেখা গেছে।

সাদা মাছ ও চিংড়ি মাছের চালান কম কিন্তু চাহিদা বেশি থাকায় কিছুটা বাড়তি দাম রাখা হচ্ছে বলে জানান মালিবাগ বাজারের মাছ বিক্রেতা সালাম।

তবে রাজধানীর বাজারে সবজির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। শুক্রবার ফুলকপি ও বাঁধাকপি ২০ টাকা পিস, সিম প্রতি কেজি ২৫ টাকা, শালগম ৩০ টাকা, ধনেপাতা ৪০ টাকা ও কাঁচামরিচ ৪০ টাকা দরে বিক্রি হতে দেখা গেছে। এছাড়া লাল শাকের আঁটি ৫ টাকা, লাউ শাক ২০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: