Monday, October 15, 2018
Home > ধর্ম > এবার হজে যেতে পারবেন ১১৩৮৬৮ বাংলাদেশি

এবার হজে যেতে পারবেন ১১৩৮৬৮ বাংলাদেশি

চাঁদ দেখা সাপেক্ষে চলতি বছরের সেপ্টেম্বর মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে পবিত্র হজ অনুষ্ঠিত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। ইতোমধ্যেই হজের জন্য প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছেন হজ গমনেচ্ছুরা। এ বছর (২০১৬) বাংলাদেশ থেকে মোট ১ লাখ ১৩ হাজার ৮৬৮ জন পবিত্র হজব্রত পালনের সুযোগ পাবেন।

এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় ৫ হাজার এবং বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ১ লাখ ৮ হাজার ৮৬৮ জন।

গত বছর ১ লাখ ১ হাজার ৭৫৮ জনের বাংলাদেশ থেকে হজে যাওয়ার অনুমতি ছিল। সে হিসেবে এবার হজ গমনেচ্ছুদের সংখ্যা বাড়ছে ১২ হাজার।

১৭ জানুয়ারি থেকে ৩০ মে’র মধ্যে সরকার নির্ধারিত ফি জমা দিয়ে (৩০ হাজার টাকা) রেজিস্ট্রেশন করতে হবে।

নির্ধারিত সময়ের মধ্যে এজেন্সিগুলো হজযাত্রীদের নিবন্ধন কার্যক্রম সম্পন্ন করবে। তবে হজযাত্রীকে হজের সব অর্থ ৩০ জুনের মধ্যে পরিশোধ করতে হবে। সরকারের নীতিমালা অনুযায়ী নির্ধারিত সময়ের পর কোনো অবস্থাতেই হজের অন্যান্য খরচের টাকা জমা নেওয়া হবে না।

প্রসঙ্গত, গত ১১ জানুয়ারি মন্ত্রিসভার বৈঠকে জাতীয় হজ ও ওমরাহ নীতি-২০১৬ এবং হজ প্যাকেজ-২০১৬ এর খসড়া নীতিগত অনুমোদন দেয় মন্ত্রিসভা।

সরকার অনুমোদিত প্যাকেজে হজের জন্য এ বছর সরকারিভাবে খরচ ধরা হয়েছে কোরবানিসহ ৩ লাখ ৬০ হাজার ২৮ টাকা। কোরবানি ছাড়া ৩ লাখ ৪ হাজার নয়শ’ তিন টাকা।

আর বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় মৌলিক ও অভিন্ন খরচ ১ লাখ ৫৫ হাজার ৪৪১ টাকা। গতবছরের চেয়ে এবার মৌলিক ও অভিন্ন খরচ বেড়েছে ৭ হাজার টাকা।

অন্যদিকে প্যাকেজ-১ এ হজযাত্রীদের জন্য খরচ নির্ধারণ করা হয়েছে ৩ লাখ ৬০ হাজার ২৮ টাকা। গতবছর তা ছিল ৩ লাখ ৫৪ হাজার ৭৫৪ টাকা। এবার এই প্যাকেজে খরচ বেড়েছে ৫ হাজার ২৭৪ টাকা।

একইভাবে এবার হজযাত্রীদের জন্য প্যাকেজ-২ এর খরচ নির্ধারণ করা হয়েছে ৩ লাখ ৪ হাজার ৯০৩ টাকা। যা গতবার ছিল ২ লাখ ৯৬ হাজার ২০৬ টাকা। এবার এই প্যাকেজে বেড়েছে ৭ হাজার ৭৪০ টাকা।

বেসরকারি পর্যায়ের সব হজযাত্রীর জন্য এবারের অভিন্ন খরচ ১ লাখ ৫৫ হাজার ৪৪১ টাকা ধরা হয়েছে। যা গতবার ছিল ১ লাখ ৪৮ হাজার ৩৩১ টাকা। ফলে এবার এই খাতে হজযাত্রীদের খরচ বেড়েছে ৭ হাজার ১১০ টাকা। এর সঙ্গে খাওয়া-বাড়ি ভাড়া যোগ করে সংশ্লিষ্টরা বেসরকারি ব্যবস্থাপনার হজ প্যাকেজ ঘোষণা করতে পারবেন।

সরকার অনুমোদিত প্রত্যেকটি হজ এজেন্সি বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় হজযাত্রীদের জন্য নিজ নিজ প্যাকেজ অনুসারে মক্কা ও মদিনার বাড়ি ও হোটেল ভাড়া, খাওয়া খরচ, মোয়াল্লেমকে প্রদেয় সার্ভিস চার্জ ইত্যাদি ব্যয় চূড়ান্ত করে সর্বোচ্চ দুটি প্যাকেজ ঘোষণা করতে পারবেন।

এবার হজে ব্যয় বাড়ার কারণ সম্পর্কে বলা হয়েছে, মুদ্রাস্ফীতি ও ডলারের মূল্যসহ অন্য খরচ বেড়ে যাওয়ায় হজের খরচ বেড়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: