Tuesday, October 9, 2018
Home > মুক্তিযুদ্ধ > খালেদা পাকিস্তানী আতিথেয়তায় ছিল বলে মুক্তিযুদ্ধ দেখেনি

খালেদা পাকিস্তানী আতিথেয়তায় ছিল বলে মুক্তিযুদ্ধ দেখেনি

খালেদা জিয়া পাকিস্তানী আতিথেয়তায় ছিল বলে মুক্তিযুদ্ধ দেখেনি
এক মানববন্ধন ও পতাকা মিছিলে এ কথা বলেন প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় সংসদীয় স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান ক্যাপ্টেন (অবঃ) এবি তাজুল ইসলাম এম.পি।

মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের প্রতিনিধিত্বকারী সংগঠন ‘আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান’ কেন্দ্রীয় কমিটির উদ্যোগে আজ ৮ জানুয়ারি সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিকৃতকারীদের কঠোর শাস্তি ও আইন প্রণয়নের দাবিতে এক মানববন্ধন ও পতাকা মিছিল অনুষ্ঠিত হয়।

সংগঠনের সভাপতি মোঃ হুমায়ুন কবির এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় সংসদীয় স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান ক্যাপ্টেন (অবঃ) এবি তাজুল ইসলাম এম.পি। বক্তব্য রাখেন জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা সমন্বয়ক কমিটির মহাসচিব শফিকুল বাহার মজুমদার টিপু, যুগ্ম মহাসচিব মোঃ শরীফ উদ্দিন, আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তানের প্রেসিডিয়াম সদস্য হাজী মোঃ এমদাদুল হক, ঢাকা মহানগরের সভাপতি মোঃ নুরুজ্জামান ভূট্টো, সাধারণ সম্পাদক মোঃ শাহজাহান রিজভী, কেন্দ্রীয় প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক শাহ পরান সিদ্দিক তারেক, সম্পাদকমন্ডলীর সদস্য মোঃ সোহাগ বারী, কেন্দ্রীয় নেতা মোঃ বেলাল হোসেন, মোঃ গোলাম দস্তগীর, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ ইকরামুল হক, এডভোকেট শান্তা, ঢাকা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের রেজিষ্ট্রার (মেডিসিন বিভাগ) ডাঃ ফারুক মোঃ মহসীন, ঢাকা মহানগরের সহ সভাপতি মোঃ সালাউদ্দিন, মোঃ দেলোয়ার হোসেন মিলন, মোঃ শাহীন আলম, মোঃ জাকির হোসেন- ১, মোঃ জাকির হোসেন-২ সহ কেন্দ্রীয় ও মহানগরের নেতৃবৃন্দ।

ক্যাপ্টেন তাজ বলেন, খালেদা জিয়া স্বাধীনতার এত বছর পর এসে আমাদের মুক্তিযুদ্ধের শহীদদের সংখ্যা নিয়ে উল্টাপাল্টা বক্তব্য দেওয়ার পেছনে কোন দুরভিসন্ধি আছে। ৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের সময় খালেদা জিয়া পাকিস্তানী আতিথেয়তায় আরাম-আয়েশে দিন অতিবাহিত করেছে। তিনি মুক্তিযুদ্ধ প্রত্যক্ষ করেননি। তাই মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়ানো তার পক্ষেই সম্ভব। তিনি বলেন, স্বাধীনতার সুরক্ষার জন্য মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে সমুন্নত রাখার স্বার্থে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তি মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদেরকে সংগঠিত ও ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বান জানান।

ams1সংগঠনের সভাপতি মোঃ হুমায়ুন কবির বলেন, ইতিহাস বিকৃতির কারণে খালেদা জিয়ার বিচার হওয়া উচিত। যারা ইতিহাস বিকৃত করে নতুন আইন প্রণয়নের মাধ্যমে তাদেরকে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির আওতায় আনার দাবি জানান। তিনি আরো বলেন, ইতিহাস বিকৃতকারীরা ইতিহাসের আস্তাকুড়ে নিক্ষিপ্ত হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: